স্মার্ট সোনা পাচারকারী

nariঢাকা: দেখতে যেমন সুন্দরী তেমনি স্মার্ট। পরনে জিন্স প্যান্ট ও হাল আমলের জ্যাকেট। কোলে দামি তোয়ালেতে পেঁচানো দেড় বছরের ছোট্ট শিশুটি ঘুমাচ্ছে। তার দুই হাতে দুইটি ফিডার। অনেকটা ব্যস্ততার সঙ্গে ‘স্মার্ট’ সেই গৃহবধূ হেঁটে যাচ্ছেন গ্রিন চ্যানেল দিয়ে। তাকে পাচারকারী সন্দেহ হওয়ার উপায় নেই।

কিন্তু মাহমুদা হোসাইন নামের সেই গৃহবধূর জুতা দেখে সন্দেহ হয় শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের। তারা মাহমুদাকে চ্যালেঞ্জ করেন। জুতা খোলার পর এর ভেতরে বিশেষ কৌশলে লুকানো অবস্থায় বেরিয়ে আসে ৪টি সোনার বার। যার ওজন ২ কেজি ৪৪ গ্রাম। আর দাম ১ কোটি ২২ লাখ টাকা। সোনা উদ্ধারের পর এ সুন্দরীকে আটক করেন কাস্টমস কর্মকর্তারা। মামলা দিয়ে পাঠানো হয় থানা হেফাজতে। সেখান থেকে ডিবি পুলিশের কাছে।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান জানান, মঙ্গলবার ভোরে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর থেকে এমএইচ ১৯৬ ফ্লাইটে বিমানবন্দরে নামে যাত্রী মাহমুদা হোসাইন। তার জুতার মধ্যে বিশেষ কৌশলে লুকিয়ে রাখা ছিল ৪টি সোনার বার। মাহমুদার পাসপোর্ট নম্বর এএ ০০৮৯৩৭৫। একই ফ্লাইটে একই স্থান থেকে আসা অপর যাত্রী মুহাম্মদ নুরুল্লাহ নূরের কাছ থেকে ৮০০ গ্রাম ওজনের ৮টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। যার বাজারমূল্য ৪০ লাখ টাকা। নুরুল্লার পাসপোর্ট নম্বর এজি ২৩৪৩০৭৫। তাকেও থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।

news portal website developers eCommerce Website Design