কী হচ্ছে খুলনা টেস্টের ফল

hafijস্পোর্টস ডেস্ক : ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে দাপটের সঙ্গে খেলে সফরকারী পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করলেও টেস্ট ক্রিকেটে এসে বাংলাদেশকে ভালোই চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে পাকিস্তান। ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষে বাংলাদেশের বিপক্ষে বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে সফরকারীরা। যে উইকেটে ব্যাট করে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা প্রথম ইনিংসে করেছেন ৩৩২ রান। সেই উইকেটেই বৃহস্পতিবার তৃতীয় দিন শেষে হাফিজ-মিসবাহদের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৫৩৭ রান। এ ম্যাচে ফল কি তাহলে পাকিস্তানের পক্ষেই যাচ্ছে। নাকি দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং দৃঢ়তায় এখনো টেস্ট ড্রয়ের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ।

জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক ও বর্তমান পরিচালক মো. আকরাম খান অবশ্য খুব একটা আশা দেখছেন না। তিনি জানান, এই মুহূর্তে আমরা ব্যাকফুটে আছি, পাকিস্তান খুব ভালো ব্যাট করেছে। এ উইকেটে আড়াই শ রানের লিড হলে তা বড় টার্গেট হবে। ম্যাচ বাঁচাতে হলে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটসম্যানদের খুবই সেন্সিবল খেলতে হবে। ধৈর্য নয় খেলতে হবে কেয়ারফুলি। বেশি রক্ষণাত্মক খেলতে আউট হয়ে যেতে হবে। অন্তত দু-তিন জনকে লম্বা ইনিংস খেলতে হবে।’

আকরাম খানের আশঙ্কার কারণ উইকেটও। তিনি বলেন, ‘উইকেটটা তো বেশ ভালোই টার্ন করছে, আমার মনে হয় এটা ব্যাটসম্যানদের জন্য ডিফিকাল্ট হবে। আর বল যত পুরোনো হবে, ব্যাটসম্যানদের জন্য আরো কঠিন হবে উইকেটে থাকা।’

জাতীয় দলের আরেক প্রাক্তন ক্রিকেটার  ও বর্তমান ম্যাচ রেফারি সিফার আহমেদ অবশ্য এখনো আশা দেখছেন। তিনি বলেন, ‘এখনো ৬ সেশন খেলা বাকি আছে। তৃতীয় দিন শেষ দিকে শুভাগত ভালো বল করছিল, দিনের শুরু থেকে শেষদিকে রান রেটটা কমে এসেছে। এটাকে ধরে রাখতে হবে চতুর্থ দিন সকালেও। যত কম রানে ওদের আটকানো যায়। আর বেশি দায়িত্ব নিতে হবে ব্যাটসম্যানদেরই। বাংলাদেশ দল এখন অনেক বেশি আত্মবিশ্বসী। তারা যদি ইচ্ছা করে উইকেটে থাকবে, তাদের অ্যাবিলিটি আছে। তারা থাকতে পারবে। তবে দ্বিতীয় দিনের মতো সুইসাইড আউট হয়ে এলে খেলা হাত থেকে বেরিয়ে যাবে। ওদেরও বেশ কয়েকজন ভালো স্পিনার আছে, তাদের সমীহ করেই খেলতে হবে।’

একাদশ নিয়ে তিনি বলেন, যে জন্য শহীদকে দলে নেওয়া হয়েছে, নতুন বলে সে এটাকে কাজে লাগাতে পারেনি।

শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামের পিচ কিউরেটরের মুখেও বাংলাদেশের এমন অবস্থার জন্য শোনা গেল ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার কথা। তিনি বলেন, ‘যে উইকেটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা খেলতেই পারেনি, কিছুক্ষণ পরেই সেই উইকেটে দারুণ সাবলীল ব্যাট করল পাকিস্তান। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটসম্যানদের উইকেটে থাকতে হবে। প্রথম ইনিংসে তো আমরা ৮টি উইকেট বিলিয়ে দিয়ে এসেছি। খুব একটা আশাও দেখছেন না তিনি। জানান, বল ঠিকভাবেই উইকেটেই এসেছে, তারা পরও ব্যাটসম্যানরা যেভাবে খেলেছে প্রথম ইনিংসে এটাই যদি দ্বিতীয় ইনিংসে খেলে তাহলে আমরা হারতে বসেছি।

news portal website developers eCommerce Website Design