ক্ষুদে বিজ্ঞানী অভাবনীয় উদ্ভাবন

mahaerpurসাঈদ হোসেন, মেহেরপুর : ছিনতাইকারী কিংবা ডাকাতের কবলই হোক আর অপহরনের হাত থেকে নিজেকে রক্ষার জন্যই হোক, যেকোন বিপদে নিজেকে রক্ষার জন্য মাত্র মোবাইলের একটি বটানে চাপ দিলে সাহায্যে ছুটে আসবে আইন প্রয়োগকারী সংস্থ।

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে ব্যবহার উপযোগী এমনই এক অ্যাপস তৈরী করে সাড়া ফেলেছেন মেহেরপুরের দুই তরুন কৃতি সন্তান, সাদ্দাম হোসেন ও মিজানুর রহমান। অপরাধ দমনমূলক ও নিরাপত্তা দানকারী উদ্ভাবনকৃত এই অ্যাপসটির নাম “সেলফ প্রটেক্ট”। সাদ্দাম হোসেন মেহেরপুর জেলার মুজিবনগরের বাবুপুর  গ্রামের মোঃ জামাত আলীর পুত্র এবং মিজানুর রহমান মেহেরপুর জেলার গাংনীর সিন্দুরকৌটা গ্রামের মোঃ আশরাফুল আলমের পুত্র। এরা দুজনেই ফার্স্ট ক্যাপিটাল ইউনির্ভাসিটি অব বাংলাদেশ, চুয়াডাঙ্গা  এর কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ার বিভাগের ছাত্র।

সাদ্দাম হোসেন ও মেজানুর রহমান জানান এই অ্যাপসটির সঠিক ব্যবহারের মাধ্যমে দেশে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সহ নাশকতা অনেকাংশে কমানো  সম্ভব। এটি যেকোন ব্যক্তির মোবাইল ফোন এর বাটন চাপার মাধ্যমে নিকটস্থ প্রশাসন দপ্তরে বার্তা বা নোটিফিকেশন প্রেরণ করবে। এই অ্যাপস এর মাধ্যমে বিপদগ্রস্থ ব্যক্তির অবস্থান জায়গার সম্ভাব্য সঠিক স্থান গ্লোবাল পজিসনিং সিস্টেম (জিপিএস) এর মাধ্যমে অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ সহ  জানা যাবে। ফলে সহজেই উদ্ধার ও সাহায্য করা সম্ভব হবে।

এই অ্যাপসটির সেবা পাওয়ার জন্য অ্যাপসটিকে সবসময় ব্যাকগ্রাউন্ডে চলমান রাখতে হবে। তাহলে যে কোন সময় বিপদে পড়লে শুধুমাত্র পাওয়ার বাটন চেপে রাখলে ভিকটিমের অবস্থান জিপিএস এর মাধ্যমে ট্র্যাক করে সবচেয়ে নিকটস্থ প্রশাসন দপ্তরের সার্ভারে ভিকটিমের অবস্থান সহ প্রয়োজনীয় তথ্য নোটফিকেশন আকারে পৌছে যাবে। আর আইন-শৃংখলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনীর বোঝার সহজে জন্য বার্তাটি গুগল ম্যাপসহ দেখাবে অপরাধ সংঘটিত ঐ স্থানটি ফলে নিমিশেই  উদ্ধার কাজসহ অপরাধীকে ধরতে সম্ভব হবে। অ্যাপসটির সেটিংস মেন্যুতে এনাবল ও ডিজএবল দুটি অপশন রাখা হয়েছে যাতে অ্যাপসটির অপব্যবহার রোধ করা যায়।

উদ্ভাবিত এই অ্যাপসটি জনগনের জন্য উন্মুক্ত করার অনুমতি সহ অ্যাপসটির উন্নতি করনে  সরকারের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন এই দুই ক্ষুদে গবেষক।

news portal website developers eCommerce Website Design