বাইরে থেকেই করপোরেশন চালাচ্ছেন নাছির!

Nasirওয়ান নিউজ বিডি, চট্টগ্রাম : আইনি জটিলতায় দায়িত্ব না পেলেও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নানা সমস্যা নিয়ে মাথাব্যাথা শুরু হয়েছে নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের। জলাবদ্ধতাসহ নগরবাসীর নানা অসুবিধা দুর করতে বাইরে থেকেও চসিক কর্মকর্তাদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, আগের মেয়র ও কাউন্সিলরদের মেয়াদপূর্তি না হওয়ায় এবং মন্ত্রণালয় থেকে কোন রকম আদেশ না পাওয়ায় চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনি ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। কিন্তু সীমাবদ্ধতার কারনে কর্পোরেশন পরিচালনায় হিমশিম খাচ্ছেন তিনি। ফলে বাইরে থেকে কর্পোরেশন পরিচালনা, আসন্ন বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতা ও নানা সমস্যা নিরসনে কর্পোরেশনের দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, ভোট দিয়ে যারা আমাকে নির্বাচিত করেছেন সেই নগরবাসীর সেবা করার জন্যই আমি মেয়র হয়েছি। তাই নগরবাসীর সেবার জন্য আমি দায়িত্ব নেওয়ার অপেক্ষায় থাকতে পারি না। দায়িত্ব পাওয়ার অপেক্ষায় থাকা মানে নিজের জন্য করা। নগরবাসী আমাকে সে জন্য নির্বাচিত করেনি।

তিনি বলেন, নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য ইতোমধ্যে আমি সিটি কর্পোরেশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে ব্যক্তিগত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মতবিনিময় করেছি। এতে জলাবদ্ধতার প্রধান সমস্যা, ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধের প্রধান কারনসমুহ চিহ্নিত করে তা সমাধানের জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম এ প্রসঙ্গে বলেন, বায়েজিদ বোস্তামি এলাকার ব্যক্তিগত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রেনেসকো সুয়েটার্স লিমিটেড কার্যালয়ে কর্পোরেশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রায় দুই ঘণ্টা বৈঠক করেছেন নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

এসময় নগরীর সবচেয়ে জলাবদ্ধ প্রবন এলাকা আগ্রাবাদের জলাবদ্ধতা নিরসনে এক সপ্তাহের মধ্যে নাছির খাল পরিষ্কার করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন তিনি। এছাড়া চসিকের স¤পূর্ণ কার্যক্রম কম্পিউটারাইজড ও নগর ভবনকে স¤পূর্ণ ওয়াইফাই জোনে পরিণত করার আগ্রহের কথা জানান আ জ ম নাছির।

এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে সিটি কর্পোরেশনে পদোন্নতি ও নিয়োগ বন্ধের বিষয়ে যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারী পক্ষে বিপক্ষে আদালতে মামলা করে কর্পোরেশনে অচলাবস্থা তৈরি করেছেন তাদেরকে দ্রুত মামলা তুলে নেওয়ার নির্দেশ দেন। বিভিন্ন ওয়ার্ডের জরাজীর্ণ কার্যালয়গুলোর তালিকা করে প্রকল্প তৈরি করার জন্য বলেন।

রফিকুল ইসলাম জানান, নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তাদের যথাযথ দায়িত্ব পালনের জন্য পরামর্শ দেন। অন্যথায় কোন ধরনের অবহেলা সহ্য করা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, আগে কি হয়েছে না হয়েছে আমি তা দেখবো না। কিন্তু এখন কোনধরণের গাফিলতি সহ্য করা হবে না। ক্রমান্বয়ে তিনি সবস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। কোন ঝামেলা থাকলে তা কর্পোরেশনে বসেই সমাধান করবেন।

বৈঠকে ভারপ্রাপ্ত মেয়র মোহাম্মদ হোসেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সচিব রশিদ আহমদ, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ স্থপতি এ কে এম রেজাউল করিম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আহমদুল হক, নির্বাহী প্রকৌশলী মনিরুল হুদা, মোহাম্মদ আবু ছালেহ ও মো. কামরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন

উল্লেখ্য, গত ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর, দক্ষিণ ও চট্টগ্রামসহ তিন সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তিনটিতেই আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থীরা জয়ী হন।

আইনে গেজেট প্রকাশের এক মাসের মধ্যে শপথ গ্রহণের বাধ্যবাধকতা থাকায় ৬ মে শপথ নেন তিন মেয়রসহ নির্বাচিত কাউন্সিলররা। শপথ নিলেও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনকে আরও প্রায় আড়াই মাস অপেক্ষা করতে হবে বলে কর্পোরেশন সূত্র জানায়।

সূত্র জানায়, স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন আইন), ২০০৯-এর ৬ ধারা মোতাবেক কর্পোরেশন গঠিত হওয়ার পর প্রথম বৈঠকের পরবর্তী পাঁচ বছর পর্যন্ত মেয়াদ নির্ধারিত থাকায় চসিক মেয়রকে জুলাই পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এ ব্যাপারে আদেশ চেয়ে চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা গত ৭ মে মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠালেও কোন জবাব দেওয়া হয়নি।

সূত্রমতে, আইন অনুযায়ী চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও কাউন্সিলরদের মেয়াদ উত্তীর্ণ হবে আগামী ২৬ জুলাই। আইনি বাধ্যকতার কারণে দাপ্তরিক কোন কাজ করতে না পারলেও সিটি কর্পোরেশনের বাইরে থেকে কর্মকর্তাদের মৌখিক বিভিন্ন নির্দেশনা দিচ্ছেন নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

news portal website developers eCommerce Website Design
Close ads[X]