আওয়ামী লীগে গা-ছাড়া ভাব বিরোধে নিস্তেজ বিএনপি

a-lig bnp logo

a-lig bnp logoওয়ান নিউজ বিডি, রংপুর : দুই বছর মেয়াদি কমিটি দিয়ে চার বছর ধরে চলছে রংপুর জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ। গা-ছাড়াভাবে চলা দলটির বছরে ঘুরে-ফিরে আসা বিভিন্ন দিবস পালন ছাড়া তেমন কোনো কর্মসূচি নেই। এলাকার উন্নয়নে নেতাদের কোনো ভূমিকা নেই। এ পরিস্থিতির ফলও পেয়েছে দলটি। গত উপজেলা ও সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দল-সমর্থিত প্রার্থীদের ভরাডুবি হয়েছে। অপরদিকে অভ্যন্তরীণ বিরোধে নিস্তেজ হয়ে পড়েছে জেলা ও মহানগর বিএনপি।

আওয়ামী লীগ : ২০১১ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি কেন্দ্র থেকে গঠন করা হয় জেলা মহানগর আওয়ামী লীগের দুই বছর মেয়াদি কমিটি। তখন অনেকেই এ কমিটি মানতে পারেননি। বিকল্প কমিটিও হয়েছিল। পরে একটা সময় সেই বিরোধ প্রকাশ্যে মিটে গেলেও তার রেশ গোপনে রয়েই গেছে। নেতারা মনে করেন, রংপুর নিয়ে তাদের বিশেষ কিছু ভাবার বা করার নেই। কারণ, দলের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা এটি। উপরন্তু তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় আছেন। এলাকার উন্নয়নের বিষয়টি তারাই ভাবেন। অবশ্য দলটির অন্য একটি অংশ মনে করে, এমন গা-ছাড়াভাবে চললে তা ভবিষ্যতের জন্য অমঙ্গল বয়ে আনবে। তার প্রমাণও মিলেছে গত সিটি করপোরেশন ও উপজেলা নির্বাচনে। সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মহানগর কমিটির সভাপতি সাফিউর রহমান সফি জামানত খুঁইয়েছেন। আর আটটি উপজেলার মধ্যে পাঁচটিতেই আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী হেরেছেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি দেলোয়ার তালুকদার উপজেলা ও সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভরাডুবি দলের ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক সংকেত মন্তব্য করে বলেন, সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড স্থানীয় নেতৃত্ব যথাযথভাবে মানুষের সামনে তুলে ধরতে পারলে পরিস্থিতি এ রকম হতো না।

বিএনপি : দীর্ঘ ১০ বছর পর গত বছরের ৬ জুন কেন্দ্র থেকে এমদাদুল হক ভরসাকে সভাপতি ও সাইফুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা এবং মোজাফফর হোসেনকে সভাপতি ও সামসুজ্জামান সামুকে সাধারণ সম্পাদক করে মহানগর কমিটি গঠন করা হয়। এতে দলের কার্যক্রমে গতিশীলতা আসার কথা থাকলেও উল্টো সেখানে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছে নেতা-কর্মীরা। এ কমিটি দলের একাংশ মেনে নেয়নি।

news portal website developers eCommerce Website Design
Close ads[X]