বিএসএফের এলোপাতাড়ি গুলিতে আহত ৫, নিহত ১

joypurhatজয়পুরহাট প্রতিনিধি : জয়পুরহাটের সীমান্তের ভেতরে (বাংলাদেশের অভ্যন্তরে) ঢুকে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বিএসএফ সদস্যদের আকস্মিক এলোপাতারি গুলি বর্ষণে  ৫বাংলাদেশী গুরুত্বর আহত  হবার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে সায়েম (৩৬)নামে একজনের  মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুুপুরে এ ঘটনাটি সদর উপজেলার ধলাহার ইউনিয়নের ভুটিয়াপাড়া সীমান্তের ২৭৬/৮নম্বর সাব পিলার সংলগ্ন এলাকার পশ্চিম রামকৃষ্ণপুর গ্রামে।

আহত ৫জনকেই প্রথমে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে সায়েম কে পরে আশঙ্কাজনক অবস্থা সেখান থেকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে সেখানে তার মৃত্যু হয়।নিহত সায়েম পশ্চিম রামকৃষ্ণপুর গ্রামের আব্দুল বারিকের ছেলে।

বিএসএফের গুলিতে আহত অন্য চারজন হলেন একই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে আবু জাফর বিদ্যুৎ (২৯) ,আব্দুল খালেকুলের ছেলে ফারুক (২৬) এবং আদিবাসী  কৃষ্ট মার্ডির দুই ছেলে পরিমল মার্ডি (৩৬) ও  র্নিমল  মার্ডি  (২৯)। ধলাহার ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হক ও বিএসএফের গুলিতে আহতরা জানান,দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পশ্চিম রামকৃষ্ণপুর গ্রামে সীমান্ত ঘেঁষা একটি পুকুরে দুই ছেলের মাছ ধরতে যাবার ঘটনাকে কেন্দ্র করে  বিএসএফ সদস্যরা তাদেরকে ধাওয়া করে।

এ সময় গ্রামবাসীরা প্রতিবাদ করলে প্রায় ৩০/৩৫জন  বিএসএফ সদস্য  সংঘবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশ ভূখন্ডের অন্তত: ৪শ’ গজ ভেতরের ওই গ্রামে ঢুকে অতর্কিত এলোপাতারি গুলি ছোঁড়ে। বিএসএফের গুলিতে ওই গ্রামের আদিবাসী দুই সহোদর পরিমল মার্ড্ডি ও  র্নিমল মার্ড্ডি সহ ফারুক, বিদুৎ ও সায়েম গুলিবিদ্ধ হয়।এদের মধ্যে সায়েমের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে বগুড়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে সায়েম মারা যায়।

জয়পুরহাটের ৩বর্ডার গার্ড ব্যাটারিয়ান-বিজিবি’র অধিনায়ক লে.কর্নেল আব্দুর রাজ্জাক তরফদার জয়পুরহাট সীমান্তের বাংলাদেশ ভূখন্ডের ভেতরে পশ্চিম রামকৃষ্ণপুর গ্রামে অনুপ্রবেশ করে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীÑ বিএসএফের অতর্কিত গুলিবর্ষণের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ওই  গ্রামের ৫বাংলাদেশী গুলিবিদ্ধ হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন।

news portal website developers eCommerce Website Design