জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় ৭ জনের মৃত্যুদন্ড

fasi logo

এরশাদুল বারী তুষার, জয়পুরহাট: জয়পুরহাটে ধারকী মন্ডলপাড়া গ্রামে চাঞ্চল্যকর আব্দুল মতিন হত্যা মামলায় সাত জনের মৃত্যুদন্ড ও এক জনের যাবজ্জীবন কারদন্ড দিয়েছে জেলা ও দায়রা জজ আদালত। বুধবার দুপরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আব্দুর রহিম এ রায় দেন।

মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত আসামীরা হলো- ধারকী বড়াইল গ্রামের মৃত আব্দুল কাদের প্রামানিক এর ছেলে ওয়াজেদ আলী তোরাফ(৪৫) ও তার ছেলে আনু(২০) এবং আবু হাসান দিলীপ(২৫), মোবারক আলী মোল্লার ছেলে চৈতুন মোল্লা(৪৩), ছাফাদুল(৩৮), আব্দুল কাদের প্রামানিক এর ছেলে মছির উদ্দীন(৪৮) ও মোক্তার আলীর ছেলে মন্টু মিয়া(৩০) এবং যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্ত আসামী হলো একই গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে মাহবুব আলম বাবু(২৫)। এদের মধ্যে মন্টু মিয়া পলাতক রয়েছে।

মামলার বিবরনে জানা যায়- ২০০৬ সালের ২৭ অক্টোবর সকালে ধারকী মন্ডলপাড়া গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দীন মন্ডলের ছেলে আব্দুল মতিন মোটরসাইকেল যোগে তার মেয়ের আকীকার দাওয়াত দিতে বাড়ি থেকে বের হয়। পথিমধ্যে একই গ্রামের বড়াইল প্রামানিক পাড়ায় তার পথ রোধ করে আসামীরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তাকে হত্যা করে। এ ব্যাপারে ওই দিনই নিহতের বড় ভাই শাহা আলম বাদী হয়ে ৯ জনকে আসামী করে জয়পুরহাট থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে থানা পুলিশ ২০০৭ সালের ৩০মার্চ ওই ৯জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। আদালত দীর্ঘ শুনানী শেষে আজ এ ৮ জনের বিরুদ্ধে রায় প্রদান করেন।

এদিকে এ মামলার একজন আসামী মামলা চলাকালীন মৃত্যুবরণ করেন। এ মামলায় ১৬ জন স্বাক্ষী ও ১০ জন নিরীক্ষকের স্বাক্ষীতে আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় আদালত এ রায় ঘোষনা করেন।

এদিকে এই রায়ে এ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল সহ সরকার পক্ষের অন্য আইনজীবীরা বেশ উচ্ছাস প্রকাশ করেন।

news portal website developers eCommerce Website Design