প্রশ্নপত্র না থাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরীক্ষা হয়নি নীলফামারীতে

nilphamari map

nilphamari mapনীলফামারী প্রতিনিধি : প্রশ্নপত্র তৈরী না হওয়ায় নীলফামারী জেলার সদর উপজেলা প্রাথমিকের ৪০ হাজার শিক্ষার্থী শনিবারের অনুষ্ঠিত বার্ষিক পরীক্ষা দিতে পারছে না। সারাদেশের ন্যায় আজ শনিবার থেকে পুর্ব নির্ধারিত রুটিন অনুযায়ী পরীক্ষা শুরু হলেও শুধু মাত্র জেলার সদর উপজেলায় এর ব্যতিক্রম ঘটেছে। এ নিয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছে। সেই সঙ্গে পরীক্ষার প্রস্তুতি শেষ করা প্রথম শ্রেনী হতে চতুর্থ শ্রেনীর শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা কেন্দ্রে এসে পরীক্ষা হবে না জেনে ফিরে গেছে। জানা যায়, জেলার ডোমার, ডিমলা, জলঢাকা, কিশোরগঞ্জ ও সৈয়দপুর উপজেলায় যথা নিয়মে পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

নীলফামারী জেলার সদর উপজেলার ২০৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪০ হাজার শিক্ষার্থী প্রশ্নপত্র তৈরী না হওয়ায় আজকের(শনিবারের) পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি।সদর উপজেলার বিভিন্ন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগন জানান, তারা গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে উপজেলা শিক্ষা অফিসে প্রশ্নপত্র আনতে গেলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা প্রশ্নপত্র সরবরাহ করতে কালক্ষেপন করতে থাকেন। এক পর্যায়ে বিকালেও প্রশ্ন দিতে না পারায় শনিবারের পরীক্ষাটি সবার শেষে গ্রহণ করা হবে বলে শিক্ষকদের জানান। জানা যায়, একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী কোন পরীক্ষা কখন হবে সেটি নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।

বার্ষিক পরীক্ষাও সরকারী ক্যালেন্ডার অনুযায়ী হওয়ার কথা কিন্তু প্রশ্নপত্র তৈরী না হওয়ায় প্রথম পরীক্ষা যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। এক মাস আগে পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করা হয় এবং যথাসময়ে পরীক্ষা সম্পন্নের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেয়ার কথা। সে হিসাবে শনিবার থেকে গোটা জেলায় প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণী পর্যন্ত বার্ষিক পরীক্ষার দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নীলফামারী সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) খন্দকার শরিফুল ইসলাম জানান, শুক্রবার শিক্ষা বিষয়ে এক কর্মশালায় ব্যাস্ত থাকায় প্রশ্নপত্রের বিষয়টি সমাধান করতে পারিনি। এ ছাড়া ছাপাখানা প্রশ্নপত্র সরবরাহ করতে পারেনি। যার কারণে আজকের শনিবারের পরীক্ষা সব শেষে গ্রহণ করা হবে। এ ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দিলিপ কুমার বণিক বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানান।

news portal website developers eCommerce Website Design