মৌলভীবাজার-শেরপুর মহাসড়কে যান চলাচল নিষেধ

ওয়ান নিউজ, মৌলভীবাজার : বড়হাটের জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চলাকালে মৌলভীবাজার থেকে সিলেটগামী যানবাহনগুলোকে মূল মহাসড়ক না ব্যবহার করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শাহজালাল। এ যানবাহনগুলোকে বিকল্প সড়ক হিসেবে ফেঞ্চুগঞ্জ সড়ব ব্যবহার করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া শেরপুর থেকে যেন কোনো গাড়ি মৌলভীবাজারের দিকে না আসে সে নির্দেশও দিয়েছেন এসপি মো. শাহজালাল। জেলা শহরের যান চলাচলও নিয়ন্ত্রিত রয়েছে।

বড়হাটের জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চলাকালে শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সাংবাদিকদের এ সব তথ্য জানান তিনি।

এদিকে মৌলভীবাজারের নাসিরপুরের পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এখন বড়হাটের জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালাচ্ছে। পুরো এলাকা ঘিরে রেখেছেন পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা। সকাল ৯টা ৫০ মিনিটে মূল অভিযান শুরু করে সোয়াট ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা।

বড়হাট এলাকার আশপাশে ১৪৪ ধারা জারি থাকায় পুলিশের পক্ষ থেকে আবারও মাইকিং করে জানানো হচ্ছে, যাতে সাধারণ মানুষ এ এলাকা দিয়ে চলাচল না করে।

মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শাহজালাল বড়হাট এলাকায় এসে সেখানে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ এবং স্থানীয়দের সরিয়ে দেওয়ার কাজ তদারকি করছেন। সাংবাদিকরাও যেন এ এলাকায় দাঁড়িয়ে ভিড় না করেন সে জন্য অনুরোধ জানান।

গত মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে তারা মৌলভীবাজার শহরের বড়হাট আবুশাহ দাখিল মাদ্রাসা গলিতে দোতলা বাড়িটি জঙ্গি আস্তানা হিসেবে শনাক্ত করে ঘিরে রাখেন। ওই বাড়ি ঘিরে রাখার পরে সেখানকার তত্ত্বাবধায়কের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে বুধবার ভোরে শহর থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে নাসিরপুর গ্রামের জঙ্গি আস্তানাটি শনাক্ত করা হয়। একদিন ঘিরে রাখার পর বৃহস্পতিবার নাসিরপুরে ‘অপারেশন হিট ব্যাক’ সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। পাশাপাশি বড়হাটের আস্তানটি তারা ঘিরেই রাখে। অভিযান শেষে নাসিরপুরের জঙ্গি আস্তানা থেকে ‘ছিন্নভিন্ন সাত থেকে আটজনের লাশের অংশ’ পাওয়ার কথা জানায় পুলিশ। পুলিশের ধারণা, বুধবার বিকেলেই আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটিয়ে তারা নিহত হয়। তারা একই পরিবারের সদস্য।

news portal website developers eCommerce Website Design
Close ads[X]