মামলা তুলে নিতে হত্যার হুমকি বগুড়ার ধর্ষক ইউপি চেয়ারম্যানের

morsadul bari bogura

morsadul bari boguraবগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার কলেজ ছাত্রী ধর্ষণ মামলার একমাত্র আসামী ইউপি চেয়ারম্যান মোরশেদুল বারীকে এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। মামলা তুলে নিতে কলেজ ছাত্রী ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিচ্ছে চেয়ারম্যান ও তার ক্যাডার বাহিনী। ফলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন কলেজ ছাত্রী ও তার পরিবার।

মামলায় ন্যায় বিচার পেতে ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে রোববার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন মামলার বাদী কলেজ ছাত্রী রুমিছা খাতুন (রুমি)।

জানা যায়, গত ৩১ আগস্ট নন্দীগ্রাম উপজেলার ৩ নং ভাটরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোরশেদুল বারীর (৪৬) বিরুদ্ধে শাজাহানপুর থানায় ধর্ষণ দায়ের করে একই উপজেলার দুর্জয়পুর পূর্ব পাড়ার ওমর আলীর মেয়ে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী রুমিছা খাতুন রুমি(২২)। যার মামলা নং-২৩।

মামলা দায়েরের ১১ দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ এখনো আসামী মোরশেদুল বারীকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

অপরদিকে মামলা দায়েরের পর থেকে চেয়ারম্যান ও তার ক্যাডার বাহিনী মামলা তুলে নিতে বাদী রুমিছা খাতুন ও তার মা, বাবা, ভাইকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে বলা হয়।

কলেজ ছাত্রী সংবাদ সম্মেলনে আরো অভিযোগ করেন, মোরশেদুল বারী বহু অপকর্মের মদদ দাতা, অস্ত্রধারী ও কুখ্যাত লম্পট প্রকৃতির মানুষ। তার ভয়ে এলাকার কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না। চেয়ারম্যান হওয়ার কারণে পুলিশ প্রশাসনকে তিনি তোয়াক্কা করেন না। তার নামে নন্দীগ্রাম থানায় হত্যা চেষ্টা ও চাঁদাবাজির দু’টি মামলা রয়েছে। মামলাগুলো বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ওই কলেজ ছাত্রী পুলিশ প্রশাসনসহ সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কাছে নিজের ও তার পরিবারের সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তা ও মামলার ন্যায় বিচার চেয়ে আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(তদন্ত) আবুল কালাম আজাদের সাথে কথা বললে তিনি জানান, আসামী ইউপি চেয়ারম্যানকে গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আশা করি খুব শিগ্রই তিনি গ্রেফতার হবে।

news portal website developers eCommerce Website Design