নেত্রকোনা-৩ আসনে সাধারণ ভোটাররা চান পরিবর্তন

osim

osimনেত্রকোনা প্রতিনিধি: আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নেত্রকোনা-৩, কেন্দুয়া-আটপাড়া নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগ দলীয় তৃণমূল নেতাকর্মীসহ মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের রাজনৈতিকদল ও বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা পরিবর্তন চান। এজন্য ত্যাগী ও সৎ নেতাকে তারা প্রাধান্য দেবেন বেশি। আর এ ক্ষেত্রে এগিয়ে রাখছেন আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা অসীম উকিল।

যার শরীরের প্রতিটি রক্তকণা দেশ, মাটি ও মানুষের জন্য উৎসর্গ করবেন, যারা প্রকৃত পক্ষেই জাতির পিতার আর্দশের সৈনিক, যারা শেখ হাসিনার একনিষ্ঠকর্মী আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সারাদেশসহ নেত্রকোনা-৩ আসনের কেন্দুয়া-আটপাড়া নির্বাচনী এলাকায় তাদেরকেই মনোনয়ন দেয়ার দাবি এখন সবার মুখে মুখে ফিরছে। বছর ঘুরে আসছে মহান জাতীয় সংসদ নির্বাচন।

ইতোমধ্যে বিভিন্ন সংস্থা ও গণমাধ্যমকর্মীরাও এসব তথ্য তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীসহ সাধারণ জনগনের কাছ থেকে মতামত সংগ্রহ করে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে পাঠাচ্ছেন আগামী মনোনয়ন দানের জন্য।

নেত্রকোনা-৩, (কেন্দুয়া-আটপাড়া) নির্বাচনী এলাকায় যেসব সম্ভাব্য প্রার্থীরা সরব। নৌকার পক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন নিরলসভাবে। আর এক্ষেত্রে বেশি এগিয়ে অসীম উকিল-অপু দম্পত্তি। তারা ঘরে ঘরে নৌকার গণজোয়ার গড়ে তুলতে নির্বাচনী এলাকায় বিভিন্ন ইউনিয়নে সভা সমাবেশ করে যাচ্ছেন তৃনমূল নেতাকর্মীদের জাগিয়ে তুলতে।

এছাড়া মনোনয়ন পেতে মরিয়া আওয়ামীলীগ নেতা শিল্পপতি সামছুল কবির খান, ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এ্যাডভোকেট সাইদুর রহমান মানিক, সাবেক এমপি মঞ্জুর কাদের কোরাইশী, বর্তমান এমপি ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু, পদ বঞ্চিত তরুণ আওয়ামীলীগ নেতা এ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন, সাবেক ছাত্রনেতা আলমগীর হাসান, আটপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী খায়রুল ইসলাম ও সাবেক এমপি এ্যাডভোকেট এম জুবেদ আলীর ছেলে এ্যাডভোকেট আবুল বাশার মো: আমিরুল ইসলাম (তুষার), কেন্দুয়া ডিগ্রী কলেজের অধ্যাপক মিয়া মো: শফিক ও স্বেচ্ছাসবেকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি প্রবাসী ও কল্যান বিষয়ক সহ-সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন কবির।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত এমপি ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু তিনি একজন বিশিষ্ট শিল্পপতি। তিনি এমপি হবার পরও দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে দলাদলী ও বিশৃঙ্খলা মিটমাট করতে পারেননি এমন কি উদ্যোগও নেননি বলে অভিযোগ সাধারণ মানুষের।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাফরপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর চৌধুরী বিভিন্ন সভা সমাবেশে প্রকাশ্যে বলে বেড়াচ্ছেন, আওয়ামী লীগের পার্লামেন্টারী বোর্ড অথবা শেখ হাসিনা যাতে জনবিছিন্ন কোন নেতাকে দল থেকে আগামীর মনোনয়ন না দেন। বর্তমান এমপি পিন্টুর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, সৎ মানুষ হিসাবে তিনি টাকা নেন না। এ কথা মঞ্চে উঠে বলা সহজ, কিন্তু কেন্দুয়া ডিগ্রী কলেজসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক পদে যে সব নিয়োগ হয়েছে সেখানে কিন্তু নিয়োগ বাণিজ্যের ক্ষেত্রে লাখ লাখ টাকার বাণিজ্য হয়েছে।

অপরদিকে নির্বাচনী এলাকায় নিয়মিত ভাবে উঠোন বৈঠক, সভা সমাবেশ ও গণসংযোগ করে যাচ্ছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক নব্বইর গণআন্দোলনের অন্যতম ছাত্রনেতা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অসীম কুমার উকিল। তার সঙ্গে একজোট হয়ে মাঠে কাজ করছেন বাংলাদেশ যুব মহিলালীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি অধ্যাপক অপু উকিল। নৌকার পক্ষে গণজোয়ার গড়ে তুলতে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন এই দম্পত্তি।

সাধারণ ভোটাররা বলছেন, অসীম কুমার উকিলের রাজনৈতিক ত্যাগ, তিতিক্ষা, নির্যাতিত, শিক্ষাগত যোগ্যতা, রাজনৈতিক দূরদর্শিতার সমকক্ষ কেউ নেই এই আসনে। তাকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার মাঝির দায়িত্ব দেওয়া হলে জনগণের কল্যাণ হবে।

news portal website developers eCommerce Website Design