উত্তপ্ত হয়ে উঠছে রসিক নির্বাচনের পরিবেশ

rangpur city corporation

ডেস্ক রিপোর্ট: রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনের দিনক্ষণ যতই ঘনিয়ে আসছে, নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডের পরিবেশ ততই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি- তিন দলের প্রার্থীরা জড়িয়ে পড়েছেন বাকযুদ্ধে।

মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে একে অপরকে নিয়ে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়, পাল্টাপাল্টি অভিযোগ এবং কাউন্সিলর প্রার্থীদের সংঘর্ষ, নির্বাচনী কার্যালয় পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় নির্বাচনী পরিবেশ ক্রমশই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে।

শনিবারও নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ চালিয়েছেন তিন হেভিওয়েট মেয়র প্রার্থী। জনসংযোগকালে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু বলেন, এরশাদ ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে রংপুরে কোনো উন্নয়ন করেননি, যা হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমলেই হয়েছে।

জাপা প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলছেন, ঝন্টু পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকলেও নগরীর উন্নয়ন করেননি। তিনি মেয়র হিসেবে ব্যর্থ এবং তার নির্বাচনে দাঁড়ানোর কোনো অধিকার নেই।

অন্যদিকে বিএনপি প্রার্থী কাওসার জামান বাবলা বলেছেন, এ সরকারের আমলে সুষ্ঠু নির্বাচনই আশা করা যায় না।

শনিবার আওয়ামী লীগ প্রার্থী সদ্য সাবেক মেয়র সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু বলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ নয় বছর ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে তিনি রংপুরের কোনো উন্নয়ন করেননি। তিনি শুধু তার নিজের এবং দলের লোকজনের ভাগ্যোন্নয়ন করেছেন।

তার দাবি, রংপুরের যা উন্নয়ন হয়েছে তা রংপুরের পুত্রবধূ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমলেই হয়েছে। তাই রংপুরের উন্নয়ন চাইলে নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে হবে।

তিনি শনিবার নগরীর বাবুখা, ২০নং ওয়ার্ড, ১৩নং ওয়ার্ড, ১০নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকা জনসংযোগকালে এসব কথা বলেন।

জনসংযোগকালে ঝন্টু অভিযোগ করে বলেন, জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী যেখানেই গণসংযোগ করতে যান, সেখানেই তার সম্পর্কে আপত্তিকর কথা বলছেন।

নগরবাসীকে লাঙল মার্কায় ভোট না দেয়ার আহ্বান জানিয়ে সিটি করপোরেশন তথা রংপুরের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে তাকে জয়ী করার আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে জাতীয় পার্টি প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা বলেন, আমাদের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জনপ্রিয়তায় লাঙলের জোয়ারের স্রোত দেখে ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ঝন্টু। তার ভরাডুবি হতে দেখে সে এখন পাগলপ্রায়। কখন কী বলছেন তা তিনি নিজেই বুঝতে পারছেন না।

মোস্তফা শনিবার নগরীর খলিফাটারী, পাবর্তীপুর,বাবুপাড়া, তাজহাটসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগকালে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ঝন্টু ক্ষমতা থাকার সময় নগরীর কোনই উন্নয়ন করতে পারেননি। তিনি একজন ব্যর্থ মেয়র। তিনি (ঝন্টু) বলছেন সিটি করপোরেশনের মেয়রের হাতে কোনো ক্ষমতাই নেই। তাহলে তিনি আবার কেন মেয়র হওয়ার খায়েশ করে দাঁড়িয়েছেন।

জাতীয় পার্টির প্রার্থী বলেন, নির্বাচনী প্রচারণায় মানুষের যে ঢল দেখছি তা সত্যি অবাক হওয়ার মতো। যেখানে জনসংযোগ বা পথসভা করছি তা জনসভায় পরিণত হচ্ছে। আর সেটা সম্ভব হচ্ছে রংপুর মানুষের ভালবাসার কারণে। সবার ভালবাসার কারণেই বিপুল ভোটে লাঙলের জয় হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অন্যদিকে, বিএনপি প্রার্থী কাওসার জামান বাবলা বলেছেন, নির্বাচনে ভোটাররা ধানের শীষে ভোট দিয়ে একটি বিপ্লব ঘটাবে।

শনিবার দুপুরে রংপুর সদরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের কাছে একথা বলেন তিনি।

এসময় বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, মুক্তিযুদ্ধে সরাসরি জিয়াউর রহমান অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশকে স্বাধীন করার জন্য কাজ করে গিয়েছিলেন। দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের অবদান অবিস্মরণীয়।

তিনি বলেন, বিজয় দিবসে লাখো শহীদের রক্তে অর্জিত স্বাধীনতা থেকে উদ্বুদ্ধ হয়ে আগামী ২১ ডিসেম্বরের রসিক নির্বাচনে ধানের শীষকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করে একটা বিপ্লব ঘটাবে রংপুরবাসী। পরিবর্তন ডটকম।

news portal website developers eCommerce Website Design
Close ads[X]