যৌতুক কেড়ে নিলো আয়শার প্রাণ

gaibandha map

গাইবান্ধা প্রতিনধি : গাইবান্ধা সদর উপজেলার ঘাগোয়া ইউনিয়নের কাঁটিহাড়া গ্রামে যৌতুক কেড়ে নিলো গৃহবধু আয়শার প্রাণ। আড়াই মাস আগে যৌতুকের দাবীতে ওই গৃহবধুর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে হত্যার চেষ্টা করে শ্বশুড় বাড়ির লোকজন। পরে এলাকাবাসির সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে রংপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয় ঢাকায়। চিকিৎসকরা জানান তার শরীরের অধিকাংশ আগুনে পুড়েগেছে। সেখানে অর্থাভাবে তার চিকিৎসা আটকে যায়। পরে তাকে নেওয়া হয় বাবার গ্রামের বাড়ি উত্তর খোলাহাটীতে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বৃহ:বার সন্ধ্যে সাড়ে সাতটায় মারা যান তিনি।

স্বজনদের অভিযোগ, তিন বছর আগে একই উপজেলার ঘাগোয়া ইউনিয়নের কাঁটিহাড়া গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে সোহেলের সঙ্গে বিয়ে হয় তার। সংসারের শুরু থেকেই যৌতুকের দাবিতে কারণে অকারণে শ্বশুড় বাড়ির লোকজন শারীরিক ভাবে নির্যাতন করত আয়েশাকে। সর্বশেষ চলতি বছরের ১৮ জানুয়ারি আয়েশার পড়নে থাকা পোশাকে কেরোসিন ঢেলে রান্না ঘরে আটকে রাখে শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এসময় আগুন গোটা শরীরের ছড়িয়ে পড়লে গুরতর দগদ্ধ হয় আয়শা।

আয়েশার মা লতিফুল বেগম বলেন, যৌতুকের কারনে আমার মেয়ের জীবন দিতে হল। আমার মেয়ের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। এদের শাস্তি দেখে সমাজের সকল যৌতুকের দাবিদাররা যেন এই নির্মম হত্যাকান্ড না ঘটায়।

উল্লেখ্য, গত ১৮ জানুয়ারি যৌতুকের দাবিতে আয়েশা নামের ওই গৃহবধুকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ ওঠে তার শ্বশুরবাড়ির লোজকজনের বিরুদ্ধে। ওই ঘটনায় তার শরীরের ৩০ শতাংশ আগুনে পুড়ে যায়।

news portal website developers eCommerce Website Design