আগামী নির্বাচনে প্রবাসীদের পরীক্ষামূলক ভোটগ্রহণের সুপারিশ

ঢাকা:আগামী জাতীয় নির্বাচনে প্রবাসীদের পরীক্ষামূলকভাবে ভোটগ্রহণের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) জাতীয় পরিচয় অনুবিভাগ।

প্রবাসে ভোটগ্রহণের সুবিধা-অসুবিধা বিস্তারিত পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর একাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রবাসে ভোটগ্রহণের বিষয় বিবেচনা করতে সুপারিশ করে সংস্থাটি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীতে এক সেমিনারে জাতীয় পরিচয় অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম এক প্রবন্ধে এ সুপারিশ করেন।

প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান ও ভোটাধিকার প্রয়োগ শিরোনামে এ সেমিনারের আয়োজন করে ইসি।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুল ইসলাম বলেন, বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের নিবন্ধন প্রক্রিয়া এগিয়ে নিতে দূতাবাসের একটি কক্ষে লোকাল সার্ভার স্থাপন করতে হবে। প্রবাসীদের সংখ্যানুপাতে নিবন্ধন দল তৈরি করে কাজ এগিয়ে নিতে হবে। এ ছাড়া নিবন্ধন কাজের জন্য যন্ত্রপাতি ও দক্ষ আইটি কর্মকর্তা নিয়োগ দিতে হবে।

তার মতে, প্রবাসে ভোটগ্রহণের প্রধান প্রতিকূলতা হচ্ছে- বিপুলসংখ্যক ভোটকেন্দ্র স্থাপন ও ব্যয়।

এ ছাড়া ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি সহিংসতা ঠেকানো, পোস্টাল ব্যালটের স্বচ্ছতা ও গোপনীয়তা রক্ষা করাও বড় চ্যালেঞ্জ বলেন মনে করেন তিনি।

সেমিনারে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনারবৃন্দ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, জাতীয় পার্টির প্রেসিডেয়াম সদস্য জিএম কাদেরসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব, কয়েকজন রাষ্ট্রদূতসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

ছবিসহ ভোটার তালিকা প্রণয়নের পর এটিএম শামসুল হুদার কমিশন ২০০৮ সালে এবং কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ নেতৃত্বাধীন কমিশন ২০১৪ সালে দুই দফা প্রবাসীদের ভোটাধিকার দেয়ার বিষয়ে উদ্যোগ নেয়।

কিন্তু পরে তা বাস্তবে আলোর মুখ দেখেনি।। কেএম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন বর্তমান কমিশন প্রবাসী ভোটার করতে নতুন করে উদ্যোগ নিয়েছে।