চোরাই পথে বাংলাদেশি তরুণীকে ভারতের যৌনপল্লিতে বিক্রি!

potita girl

potita girlসাতক্ষীরা: বাংলাদেশি তরুণীকে ভারতে পাচার করে যৌনপল্লিতে বিক্রির দায়ে দুই নারীসহ চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্র্ইাব্যুনালের বিচারক হোসনে আরা আক্তার এই রায় দেন।

দণ্ডিত আসামিরা হলেন, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার মাহমুদপুর বাদামতলা গ্রামের রহিমা খাতুন, মাসুরা খাতুন, আবদুর রশীদ ও আবদুল জলিল। তাদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাস সশ্রম কারাদণ্ডের আদেন দেওয়া হয়। তারা জামিনে থাকায় রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।
আসামিদের মধ্যে আশরাফুল ইসলামকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত।

মামলার বিবরণীতে বলা হয়, ২০১০ সালের ২ জানুয়ারি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার এক তরুণীকে বাড়ি থেকে আসামিরা ফুসলিয়ে ডেকে নিয়ে যায়। পরে তারা ওই তরুণীকে সাতক্ষীরার কুশখালী সীমান্ত পথে ভারতে পাচার করে মুম্বইয়ের যৌনপল্লিতে বিক্রি করে। ওই তরুণী সেখান থেকে তার মায়ের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে এ তথ্য জানায় এবং সেখান থেকে তাকে উদ্ধারের আবেদন জানায়। পরে এ বিষয়ে আদালতে একটি মামলা হয়।
সরকার পক্ষে এ মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট নাজমুন নাহার ঝুমুর।

news portal website developers eCommerce Website Design