তরুণীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় সমাজসেবা কর্মী ধরা, অতঃপর…

শরীয়তপুর: আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ার পর শরীয়তপুরের ডামুড্যায় এক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী তরুণীকে বিয়ে করেছেন ডামুড্যা উপজেলা সমাজসেবায় কর্মরত ইউনিয়ন সমাজকর্মী মো. আশরাফ উদ্দিন (৫২)। বুধবার রাতে পুলিশের সহযোগিতায় তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়।

মো. আশরাফ উদ্দিন ডামুড্যা উপজেলা সমাজসেবায় ইউনিয়ন সমাজকর্মী। তিনি গত ৮ বছর যাবত ডামুড্যা উপজেলা সমাজসেবায় কর্মরত আছেন । আর দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ওই তরুণী ডামুড্যা উপজেলার দক্ষিণ ডামুড্যা ইউনিয়নের বাসিন্দা।

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ওই তরুণী বলেন, আমাকে বিয়ে করবে বলে গত মার্চ মাস থেকে ইউনিয়ন সমাজকর্মী মো. আশরাফ উদ্দিন স্যার প্রতিনিয়ত রাতে আমার কাছে আসতেন। পরে গত ১৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার রাতে স্থানীয়রা আমাদেরকে আপত্তিকর অবস্থায় ধরে ফেলে। আমার ইচ্ছে ছিল আশরাফকে বিয়ে করার। তিনি আমাকে বিয়ে করেছেন আমি আশরাফের সঙ্গে সুখে শান্তিতে সংসার করতে চাই।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দক্ষিণ ডামুড্যা ইউনিয়নের নওগাঁ গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ওই তরুণীর সঙ্গে বিয়ের প্রলোভনে বিভিন্ন কৌশলে গত মার্চ মাস থেকে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলেন ইউনিয়ন সমাজকর্মী মো. আশরাফ উদ্দিন। এ ঘটনায় স্থানীয় লোকজন অনেকবার আশরাফকে ধরার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে। গত ১৯ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) রাতে স্থানীয়রা আশরাফকে রেহানার ঘর থেকে আপত্তিকর অবস্থায় ধরে ফেলে। পরে ঘটনার জন্য তিনি দৃষ্টি প্রতিবন্ধীকে আশরাফ দেড় লাখ টাকা দেবেন এবং বিয়ে করবেন আশ্বাস দিলে স্থানীয়রা তাকে ছেড়ে দেন। পরে গতকাল বুধবার রাতে পুলিশের সহযোগিতায় দুটি পরিবারের সম্মতিতে ডামুড্যা থানায় ওই তরুণীর সঙ্গে আশরাফের বিয়ে হয়।

ডামুড্যা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নজরুল ইসলাম বলেন, প্রতিবন্ধী ওই তরুণীর সঙ্গে আশরাফ আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়েন। স্থানীয়রা বিষয়টি জানালে আশরাফ ও ওই তরুণীসহ তাদের পরিবারকে থানায় ডাকা হয়। পরে দুই পরিবারের সম্মতিতে গতকাল রাত ১১টার দিকে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়।

news portal website developers eCommerce Website Design
Close ads[X]