ধান খেতে চার লাশের রহস্য উন্মোচন

bogura las

bogura lasডেস্ক রিপোর্ট: উন্মোচন হলো বগুড়ার শিবগঞ্জের ধানখেতে হওয়া চার হত্যাকাণ্ডের ঘটনা। গ্রেফতারকৃত তিনজন পুলিশকে জানিয়েছে, মাদক বিক্রির ৬ হাজার টাকা নিয়ে বিরোধেই নৃশংসভাবে খুন হয়েছে ওই চার যুবক। তাদের টার্গেট ছিল দুজন। দুজনকে জবাই করার ঘটনা অপর দুজন দেখে ফেলায় তাদেরও একই কায়দায় হত্যা করা হয়। এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডে মোট নয়জন অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্যে তিনজনকে গ্রেফতার করার পর বাকিদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান চলছে। সোমবার দুপুরে বগুড়া পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা তার কার্যালয়ের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, ৭ মে চারজনকে হত্যাকাণ্ডের সংবাদ পাওয়ার পর থেকে পুলিশ কাজ শুরু করে। গত রবিবার ও গতকাল ভোর পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করে শিবগঞ্জ উপজেলার কাঠগড়া চকপাড়ার রফিকুল শেখের পুত্র জুয়েল শেখ (২৫), একই উপজেলার চন্দনপুর তালুকদারপাড়ার আবদুস সামাদের ছেলে আবুল কালাম আজাদ (৪৮) ও ডাবইর গ্রামের মৃত আবু বক্করের ছেলে মো. রুবেলকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের মধ্য দিয়েই চাঞ্চল্যকর এই ফোর মার্ডারের রহস্য উন্মোচন হয়।

পুলিশ সুপার জানান, মাদক বিক্রির প্রায় ৬ হাজার টাকা নিয়ে হত্যাকাণ্ডের দুই-তিন দিন আগে খুনিদের সঙ্গে নিহতদের মারধরের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় খুনিরা আটমূল ইউনিয়নের কাঠগড়া চকপাড়ার আছির উদ্দিনের ছেল শাবরুল ইসলাম শাবুল (৩৫) ও একই এলাকার জহুরুল ইসলামের ছেলে জাকারিয়াকে (৩২) হত্যার পরিকল্পনা করে। সে অনুযায়ী রুবেলের বাড়িতে মাদক সেবনের কথা ও পাওনা টাকা ফেরত দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে ওই দুজনকে নিয়ে আসা হয়। পরে তাদের কৌশলে ডাবইর ধানখেতে নিয়ে জবাই করে হত্যা করে খুনিরা। শাবুল ও জাকারিয়াকে হত্যার পরই ওই খেতের পাশ দিয়ে কালাই উপজেলার পুনট (পাঁচপাইকা) গ্রামের আজাহার আলীর ছেলে মোহাম্মদ হেলাল (৩২) ও নান্দাইল দীঘি গ্রামের শামছুদ্দিন মণ্ডল শ্যাম্পুর ছেলে খবির হোসেন ওরফে বাউশা (৩৪) কে দেখতে পেয়ে ডাক দেয় খুনিরা।
এই দুজন জানায়, তারা কিছু হেরোইন নিয়ে ঢাকায় যাচ্ছে। কথা বলার সময় দুজনের জবাইকৃত লাশও দেখে ফেলে তারা। দেখে ফেলার কারণে একই কায়দায় হেলাল ও খবিরকে তারা হত্যা করে। গ্রেফতারকৃতরা সবাই মাদকের সঙ্গে জড়িত।

বাকিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। এদিকে, গত ৮ মে চার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহত শাবলুর পিতা আছির উদ্দিন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।
উল্লেখ্য, ৭ মে শিবগঞ্জ উপজেলার ডাবইর গ্রামের ধানখেতের মধ্য থেকে ৪ যুবক শাবুল, জাকারিয়া, হেলাল ও বাউশার হাত পেছনে মোড়া করে বাঁধা থাকা গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

news portal website developers eCommerce Website Design