কক্সবাজার উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানসহ ৫৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

কক্সবাজার : ভোরবেলায় রাস্তায় যানবাহন চলাচলে হঠাৎ প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি ও যানবাহনে আগুন দেয়ার অভিযোগে কক্সবাজার সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা শহীদুল আলম বাহাদুর, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রাসেদুল হক রাসেল এবং শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা আমিনুল ইসলাম হাসানসহ জামায়াত-বিএনপির ৫৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

এজাহারে ১৫ জনের নাম উল্লেখ করা হলেও অজ্ঞাত রাখা হয়েছে ৪০-৪২ জনের নাম। কক্সবাজার সদর থানার এসআই রাশেদুল কবির বাদি হয়ে বুধবার মামলাটি দায়ের করেছেন। কক্সবাজার সদর থানার ওসির ইমেইল থেকে রাত সোয়া ১০টার দিকে এক তথ্যবিবরণীতে মামলার খবরটি জানানো হয়েছে।

মামলার এজাহারে লেখা হয়েছে, আসামিরা ১৭ জুলাই ভোর ৫টা ৫৫ মিনিটে শহরের খুরুশকুল ব্রিজের দক্ষিণপার্শ্বে তিন রাস্তার মোড় পাকা রাস্তা থেকে আনুমানিক তিন কিলোমিটার পূর্বপর্যন্ত রাস্তায় যানবাহন চলাচলের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি ও যানবাহনে আগুন দেয়। এ কারণে ১৫(৩) ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে এ মামলা দায়ের করা হয়। মামলাটি সদর থানার উপ-পরিদর্শক শেখ মো. সাইফুল আলমকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এতে প্রধান আসামি করা হয় কক্সবাজার সদর উপজেলার দক্ষিণ হাজিপাড়ার মৃত খলিলুর সওদাগরের ছেলে ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল আলম বাহাদুর ওরফে ভিপি বাহাদুর (৫২), কক্সবাজার পৌরসভা কৃষি অফিস রোড এলাকার ফজল কোম্পানির ছেলে জামায়াতের শ্রমিক সংগঠনের নেতা আমিনুল ইসলাম হাসান (৩৩), ঝিলংজার দক্ষিণ ডিককুল এলাকার শামশুল হুদার ছেলে জাহেদুল গনি (২৪), পৌরসভার দক্ষিণ টেকপাড়ার জব্বার মুন্সির ছেলে ফাহিম (৩৫), দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া মৃত ছিদ্দিক আহাম্মদ ওরফে আবু ছিদ্দিকের ছেলে রাশেদ (৩৫), উত্তর রুমালিয়ারছড়ার হাজী সুলতান আহাম্মদের ছেলে এনামুল হক এনাম (৩২), দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়ার সমিতিপাড়া এলাকার মাওলানা নুরুল ইসলামের ছেলে হাসনাত ওরফে আবদুল হাসনাত (২৭), দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া ৭ নম্বর ওয়ার্ডের আবদুর রশিদ (৩২), দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়ার মৃত সিদ্দিক ওরফে চাউল বেপারী সিদ্দিকের ছেলে আইয়ুব (৩০), দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া বাঁচামিয়ার ঘোনার নুর হোসেন ফকিরের ছেলে নুরুল ইসলাম (২৫), গোদার পাড়ার মোজাহের (২৮), দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া আশুরঘোনার সেলিম (৩২), পিটিস্কুল এলাকার নুর আহমদ সওদাগরের ছেলে মেরাজ (২৫), মৃত মোনাফ কাজির ছেলে ইসমাইল (৩২), জেলা ছাত্রদল সভাপতি ও উত্তর রুমালিয়ারছড়ার ইউসুফের ছেলে রাশেদুল হক রাসেল (৩৩)। অজ্ঞাতনামা রয়েছে ৪০-৪২ জন।

অভিযোগের বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে শ্রমিক সংগঠন ও ব্যবসায়ী নেতা আমিনুল ইসলাম হাসান বলেন, যে সময়ের ঘটনা উল্লেখ করা হয়েছে সে সময় শহরের ৯৯ শতাংশ মানুষ ঘুমিয়ে থাকে। আমিও সে সময় বাসায় ঘুমিয়ে ছিলাম। মামলার খবর পেয়ে খোঁজ করেছি, এ ধরনের কোনো ঘটনা সে এলাকায় ঘটেছে বলে কেউ জানাতে পারেননি। অদৃশ্য ইশারায় পুলিশ স্পর্শকাতর একটি আইনে মামলাটি নথিভুক্ত করেছে আর শহরের অপরাধ নিয়ন্ত্রণ করা পুলিশের দালাল বলে খ্যাত সেই এলাকার (ঘটনা দেখানো স্থান) এক যুবক বেছে বেছে পুলিশকে কিছু নাম দিয়েছে যা অ্যাড করা হয়েছে।

সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল আলম বাহাদুর বলেন, একটি শান্ত পরিবেশে অহেতুক জ্বালাও-পোড়াওয়ের ঘটনা উল্লেখ করে মামলা করা অনভিপ্রেত। এমন মিথ্যা অভিযোগে মামলা নথিভুক্ত হলে মানুষের মনে আইনের প্রতি অশ্রদ্ধা জন্মায়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সদর থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার উল্লেখ করেন, সংগঠিত অপরাধে যারা জড়িত বলে তথ্য মিলেছে তাদের আসামি করা হয়েছে।

এদিকে জামায়াত-বিএনপির ৫৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করায় পৃথক সংবাদ সম্মেলন করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি ও নাগরিক কমিটি। মেয়র পদে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী রফিকুল ইসলামের সংবাদ সম্মেলন বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় জেলা বিএনপি কার্যালয়ে করা হবে বলে জানান জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক ইউসুফ বদরী।

আর নাগরিক কমিটির সরোয়ার কামালের (নারিকেল গাছ প্রতীক) পক্ষে বিকেল ৩টায় শহরের তারাবনিয়ারছড়াস্থ প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন নাগরিক কমিটির সভাপতি গোলাম কিবরিয়া।

news portal website developers eCommerce Website Design
Close ads[X]