গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নাজমুল হুদা

nazmul hudaঢাকা: রাজনীতিতে শেষ কথা বলে কিছু নেই। রাজনীতির ময়দানে কখনও শত্রুও পরম মিত্র হয়, আবার কখনও পরম বন্ধু শত্রুতে পরিণত হয়।

এমনই একজন রাজনৈতিক নেতা ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। এক সময়ের বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) ডাকসাইটের নেতা। বিএনপির শাসনামলে যোগাযোগ মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন। অনেক সময়ই বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তথা দলটির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমালোচনা করেছেন।

কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় বিএনপির সঙ্গে রাজনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন। নিজেই গড়ে তুলেছেন নয় দলীয় জাতীয় জোট। এ জোট নিয়ে তিনি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের শরিক ১৪ দলের সঙ্গে জোটবদ্ধ হতে যাচ্ছেন বলে খবর শোনা যাচ্ছিল।

শনিবার রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতীয় ও আন্তজার্তিক পর্যায়ে অর্জিত সফলতার জন্য আওয়ামী লীগের উদ্যোগে গণসংবর্ধনা চলছে। আর সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। আজ তাকে মঞ্চের সামনে সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ ও জাসদ নেত্রী শিরিণ হকসহ অন্যান্য নেতাদের সঙ্গে বসে থাকতে দেখা যায়।

জানা গেছে ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার নেতৃত্বে জাতীয় জোটের অন্যান্য সংগঠন -তৃণমূল বিএনপি, গণতান্ত্রিক আন্দোলন, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স, সম্মিলিত ইসলামিক জোট, কৃষক শ্রমিক পার্টি, একামত আন্দোলন, জাগো দল, ইসলামিক ফ্রন্ট ও গণতান্ত্রিক জোট খুব শিগগিরই ১৪ দলীর জোটে যোগ দেবে। তবে ১৪ দলের নেতারা জোট সম্প্রসারণ করতে চাইছেন না বলে গুঞ্জন রয়েছে।

গত ১৮ জুলাই ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা ১৪ দলের মুখপাত্র আওয়ামী লীগ নেতা ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সঙ্গে ধানমন্ডির কার্যালয়ে দেখা করে মতবিনিময় করেন।

news portal website developers LY1Y2K eCommerce Website Design
Close ads[X]