কারাগারে আদালত বসানোর প্রজ্ঞাপন বাতিল চেয়ে খালেদা জিয়ার আইনি নোটিশ

gadget

ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রশাসনিক ভবনের কক্ষে অস্থায়ী আদালত বসানোর প্রজ্ঞাপন বাতিল চেয়ে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে থাকা জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা বিচারের জন্য গতকাল মঙ্গলবার আইন মন্ত্রণালয় ওই প্রজ্ঞাপন জারি করে। এতে বলা হয়, ‘নিরাপত্তার কারণে’ আদালত স্থানান্তরের এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবী নওশাদ জমির বুধবার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে ও কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আইন মন্ত্রণালয়ের আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক সচিব বরাবরে ওই নোটিশ পাঠান। আইনি নোটিশে ওই প্রজ্ঞাপন ৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বাতিল করে আগের স্থানে (পুরান ঢাকার বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসা-সংলগ্ন মাঠে) বিচারের ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। নোটিশে আরও বলা হয়, এতে ব্যর্থ হলে সরকারের ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আইনি নোটিশে সংবিধানের ৩৫ (৩) ও ফৌজদারি কার্যবিধির ৯ (২) ও ৪ (১) ধারা তুলে ধরা হয়েছে বলে জানান আইনজীবী নওশাদ জমির। তিনি বলেন, ‘সংবিধানের ৩৫ (৩) অনুচ্ছেদ অনুসারে ফৌজদারি অপরাধের দায়ে অভিযুক্ত প্রত্যেক ব্যক্তি আইনের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত স্বাধীন ও নিরপেক্ষ আদালত বা ট্রাইব্যুনালে দ্রুত ও প্রকাশ্য বিচারলাভের অধিকারী হবেন। যেহেতু কারাগারের অভ্যন্তরে বিচার হচ্ছে, তাই একে প্রকাশ্য আদালত বলা যাচ্ছে না, যা একটি রুদ্ধ বিচারের মতোই। তাই ৪ সেপ্টেম্বরের প্রজ্ঞাপন সংবিধানের ৩৫ (৩) অনুচ্ছেদের পরিপন্থী। ফৌজদারি কার্যবিধির ৯(২) অনুসারে সরকার চাইলে বিভিন্ন জায়গায় আদালত বসাতে নির্দেশ দিতে পারে এবং ৪ (১) অনুসারে কোথায় আদালত বসতে পারে, তা বলা আছে। তবে কারাগারের অভ্যন্তরে আদালত বসানো বিধিবদ্ধ নয় বরং ওই বিধানের পরিপন্থী। এসব যুক্তিতে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে।’

এর আগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার বিচারকাজ চলছিল কারাগারের কয়েক শ গজের মধ্যেই পুরান ঢাকার বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসা-সংলগ্ন মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতে। ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামানের আদালতে এই মামলাটির শুনানি চলছিল।

news portal website developers eCommerce Website Design