শেখ হাসিনার অ্যাকশন ডাইরেক্ট অ্যাকশন: কাদের

kader-samabesh

দলে বিশৃঙ্খলা করলে শেখ হাসিনা ‘ডাইরেক্ট অ্যাকশন’ নেবেন বলে দলের নেতাকর্মীদের সতর্ক করলেন ওবায়দুল কাদের। এরই মধ্যে সেই অ্যাকশন শুরু হয়ে গেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

শনিবার ট্রেনে নির্বাচনী প্রচারণায় উত্তরাঞ্চল সফরের সময় টাঙ্গাইল রেল স্টেশনে যাত্রাবিরতির সময় আয়োজিত এক পথসভায় এ কথা বলেন তিনি। দেশের বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগের কোন্দলের খবর প্রকাশের প্রেক্ষাপটে নেতাকর্মীদের সতর্ক করেন কাদের।

অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে না জড়াতে নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘অ্যাকশন শুরু হয়ে গেছে। তিন দিনের মধ্যেই শোকজ যাবে। দিনাজপুর যাবে, রাজশাহী যাবে, বরগুনা যাবে, সিলেট যাবে।’ এছাড়া যারাই কোন্দলে জড়াবেন তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘ঘরের মধ্যে ঘর বানানোর চেষ্টা করবেন না। মশারির মধ্যে মশারি টানানোর চেষ্টা করবেন না। শেখ হাসিনার অ্যাকশন ডাইরেক্ট অ্যাকশন।’

শেখ হাসিনা প্রতিশ্রুতি দিলে তা বাস্তবায়ন করেন এমন মন্তব্য করে কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় এলে দেশের শতভাগ উন্নয়ন হবে। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে। শেখ হাসিনা যে প্রতিশ্রুতি দেন তা বাস্তবায়ন করেন।

সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, বিএনপি এখন নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করছে। তবে বিএনপির সকল ষড়যন্ত্র জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত ও নির্বাচন সম্পন্ন করা হবে।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, জনগণ আর বিএনপি প্রশাসন চায় না। বর্তমান সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়নে আশ্বস্ত জনগণ।

এ সময় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান সেতুমন্ত্রী।

এর আগে সকালে কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতাকে নিয়ে কমলাপুর স্টেশন থেকে নীলফামারীগামী নীলসাগর এক্সপ্রেসে উঠেন কাদের। সফর উপলক্ষে ঢাকা থেকে নীলফামারীগামী ‘নীলসাগর এক্সপ্রেস’ ট্রেনের একটি বগি রিজার্ভ করা হয়েছে। সফরে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন স্টেশনে ১১টিরও বেশি পথসভা করার কথা রয়েছে। সফর শেষ হবে নীলফামারী গিয়ে।

কমলাপুরে ট্রেনে ওঠার আগে কাদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন বার্তা তৃণমূলে পৌঁছে দেয়ার জন্যই আমাদের এই সফর। এর মাধ্যমে আমরা তৃণমূলের কিছু বার্তা দিতে চাই।’ ভবিষ্যতে নৌ ও সড়ক পথেও এই সফর করা হবে বলে জানান তিনি।

কাদেরের সফরসঙ্গী হিসাবে আছেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, বিএম মোজাম্মেল হক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, কার্যনির্বাহী সদস্য আনোয়ার হোসেনসহ দলের কেন্দ্রীয় নেতারা।

news portal website developers eCommerce Website Design
Close ads[X]